মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৭:১৬ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম:
Logo চৌদ্দগ্রামে টর্নেডোর তাণ্ডব Logo চৌদ্দগ্রামে যুবককে কুপিয়ে হত্যা, আহত ৩ Logo চৌদ্দগ্রামে ৯৩ ব্যাচের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত Logo অর্থ আত্মসাৎ ও অনিয়মের অভিযোগে ইউপি সচিব অবরুদ্ধ Logo চৌদ্দগ্রাম প্রবাসী সূর্য সন্তান সংগঠনের আহবায়ক কমিটি গঠন Logo চৌদ্দগ্রামে ঐতিহাসিক মুজিবনগর দিবস পালিত Logo চৌদ্দগ্রাম বাজারের ব্যবসায়ী কমিটির উদ্যোগে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত Logo ইউপি চেয়ারম্যানকে হত্যাচেষ্টা, অস্ত্রসহ যুবক গ্রেফতার Logo চৌদ্দগ্রামে ১০১ কেজি গাঁজাসহ যুবক আটক Logo চৌদ্দগ্রাম মডেল কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠিত Logo চৌদ্দগ্রাম উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে স্বাধীনতা দিবস পালিত Logo চৌদ্দগ্রামে আওয়ামী লীগের উদ্যোগে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন Logo চৌদ্দগ্রাম প্রেসক্লাবের উদ্যোগে স্বাধীনতা দিবস পালিত Logo মৎস্য সমবায় সমিতির মাঝে পিক আপ ভ্যান বিতরণ Logo একুশে পদক প্রাপ্ত কবি কামাল চৌধুরীকে গণ সংবর্ধনা Logo চৌদ্দগ্রামে বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস পালিত Logo সাজাপ্রাপ্ত আসামীসহ ১০ জন গ্রেফতার Logo ফেনীর জসিম মাহমুদ বিএমএসএফ’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত

শিশু তানিম হত্যা-সুপ্রিমকোটে আসামীর মৃত্যুদন্ড বহাল

প্রশাসন / ৪৪৫ বার পঠিত
সময়: শনিবার, ১৭ জুলাই, ২০২১, ১১:৪৪ পূর্বাহ্ণ

 চৌদ্দগ্রাম প্রতিনিধি: কুমিল্লার  আলোচিত মিনহাজুল আবেদিন তানিম (১০)   তৃতীয় শ্রেণির এই  শিশু হত্যা মামলার আসামি মো. মাহবুবুর রহমানের মৃত্যুদন্ড বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আসামির করা আপিল খারিজ করে বৃহস্পতিবার (১৫ জুলাই) এ রায় দেন প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের বিচারপতির আপিল বিভাগের ভার্চুয়াল বেঞ্চ। এতে করে রায় কার্যকরে আর তেমন বাধা থাকলো না। মিনহাজুল আবেদিন তানিম চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার চাঁন্দিশকরা গ্রামের জয়নাল আবেদীন পাটোয়ারীর একমাত্র ছেলে। তানিমকে কুমিল্লার একটি নামকরা স্কুলে ভর্তি করিয়ে সন্তানকে নিয়ে কুমিল্লা শহরে থাকতেন তার মা নূসরাত জাহান। আর বাবা জয়নাল আবেদীন পাটোয়ারী তখন আমেরিকা প্রবাসী ছিলেন। ২০০৭ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর তৃতীয় শ্রেণির শিক্ষার্থী মিনহাজুল আবেদিন তানিম (১০) ইবনে তাইুময়া স্কুল  থেকে ফেরার পথে তাকে  অপহরন শিকার হয়। এ ঘটনায় পুলিশ মাহবুবুর রহমান, রিপন চন্দ্র দাস এবং আলমগীর নামের তিন জনকে গ্রেফতার করে।  গ্রেফতারের পর তারা ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।
মাহবুবুর রহমান জবানবন্দিতে বলেন, সে শিশু তানিমকে মাথায় আঘাত করে হত্যা করে লাশ বাসার ছাদের উপর লুকিয়ে রাখে। বিচার শেষে এ মামলায় মাহবুবুর রহমানকে মৃত্যুদন্ড এবং রিপন চন্দ্র দাস ও আলমগীরকে সাত বছরের সশ্রম কারাদন্ড দেন বিচারিক আদালত। নিয়ম অনুসারে মৃত্যুদন্ডাদেশ অনুমোদনের জন্য হাইকোর্টে ডেথ রেফারেন্স পাঠানো হয়। পাশাপাশি কারাবন্দি মাহবুবুর রহমান আপিল করেন। শুনানি শেষে মাহবুবুর রহমানের মৃত্যুদন্ড বহাল রাখেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে রিপনের দন্ড বহাল রেখে আলমগীরকে খালাস দেন। পরে আপিল বিভাগে জেল আপিল করে মাহবুব। বৃহস্পতিবার তার আপিল খারিজ করে দেয়া হয়। আদালতে আপিল শুনানিতে আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোহাইমেন বকস। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিশ্বজিৎ দেবনাথ। তানিমের মা নুসরাত জাহান  জানান, আমি মহামান্য সুপ্রিম কোট এবং সরকারের কাছে কৃতজ্ঞ। সুপ্রিম কোট দ্রুত এই মামলার চুড়ান্ত রায় ঘোষনা করেছে। এবার আমি সরকারের কাছে আবেদন করি সরকার যেন দ্রুত এই মামলার একমাত্র ফাঁসির আসামীর রায় কার্যকর করা হয়।
তানিমের বাবা জয়নাল আবেদীন পাটোয়ারী জানান, আমি তখন আমেরকিায়  ছিলাম। আমার একমাত্র সন্তান তানিম কে উচ্ছ শিক্ষায় শিক্ষিত করতে কুমিল্লার নাম করা স্কুলে ভর্তি করিয়ে ছিলাম। ঘাতকরা আমার বুকের মানিককে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। আমি এই ঘাতকের ফাসির রায় দ্রুত কার্যকরের দাবী জানাচ্ছি।
সংবাদটি শেয়ার করুন:


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এ জাতীয় আরও সংবাদ

সবর্শেষ পঠিত সংখ্যা

আকার্ইভ বাংলা ক্যালেন্ডার

শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
৩১  

বাংলাদেশের সকল অনলাইন পত্রিকা সমূহ

ফেসবুকে আমরা

আজকের সেহরি ও ইফতারের সময়সূচী

.

সুরক্ষা অনলাইন